এইমাএ পাওয়া

১০.৭১% আয় বৃদ্ধি চামড়াজাত পণ্য রপ্তানিতে

মে ২৫, ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক, বিনিয়োগ বার্তা:

২০১৬-১৭ অর্থবছরের প্রথম ১০ মাসে চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য রপ্তানিতে আয় হয়েছে ১০১ কোটি ৮৮ লাখ ৬০ হাজার মার্কিন ডলার বা প্রায় ৮ হাজার ১৮৯ কোটি টাকা, যা এই সময়ের লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৩ দশমিক ০১ শতাংশ বেশি। একইসঙ্গে গত ২০১৫-১৬ অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায়ও ১০ দশমিক ৭১ শতাংশ বেশি বৈদেশিক মুদ্রা আয় হয়েছে এ খাতে।

বাংলাদেশ রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) মে মাসে প্রকাশিত হালনাগাদ প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, গত ২০১৫-১৬ অর্থবছরে চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য রপ্তানিতে আয় হয়েছিল ১১৬ কোটি ৯ লাখ ৫০ হাজার মার্কিন ডলার। চলতি ২০১৬-১৭ অর্থবছরে এই খাতের রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ১২২ কোটি মার্কিন ডলার। এর মধ্যে জুলাই-এপ্রিল মেয়াদে রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল ৯৮ কোটি ৯০ লাখ মার্কিন ডলার।

২০১৬-১৭ অর্থবছরের প্রথম ১০ মাসে কাঁচা চামড়া রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল ২২ কোটি ৭০ লাখ মার্কিন ডলার। এ সময়ের মধ্যে আয় হয়েছে ২১ কোটি ৩৯ লাখ মার্কিন ডলার, যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৫ দশমিক ৭৭ শতাংশ কম। গত ২০১৫-১৬ অর্থবছরের জুলাই-এপ্রিল মেয়াদে কাঁচা চামড়া রপ্তানিতে আয় হয়েছিল ২২ কোটি ৮৩ লাখ ৯০ হাজার মার্কিন ডলার। অর্থাৎ আগের অর্থবছরের তুলনায়ও চলতি অর্থবছরের প্রথম ১০ মাসে চামড়ার রপ্তানি আয় ৬ দশমিক ৩৪ শতাংশ কমেছে।

সদ্য সমাপ্ত ২০১৫-১৬ অর্থবছরের প্রথম ১০ মাসে চামড়াজাত পণ্য রপ্তানিতে আয় হয়েছিল ৩১ কোটি ৩৪ লাখ ৯০ হাজার মার্কিন ডলার। চলতি অর্থবছরের জুলাই-এপ্রিল মেয়াদে এ খাতের পণ্য রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল ৩৬ কোটি ৪৮ লাখ ৩০ হাজার মার্কিন ডলার। এর বিপরীতে আয় ৩৭ কোটি ৩৩ লাখ ১০ হাজার মার্কিন ডলার, যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ২ দশমিক ৩২ শতাংশ বেশি। একইসঙ্গে গত ২০১৫-১৬ অর্থবছরের প্রথম ১০ মাসের তুলনায় এ খাতের পণ্য রপ্তানি আয় ১৯ দশমিক ০৮ শতাংশ বেড়েছে।

২০১৬-১৭ অর্থবছরের জুলাই-এপ্রিল মেয়াদে চামড়ার জুতা রপ্তানিতে আয় হয়েছে ৪৩ কোটি ১৬ লাখ ৫০ হাজার মার্কিন ডলার, যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৮ দশমিক ৬৬ শতাংশ বেশি। আগের অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় এই খাতের রপ্তানি আয় ১৪ দশমিক ০৫ শতাংশ বেড়েছে। ২০১৫-১৬ অর্থবছরের প্রথম ১০ মাসে চামড়ার জুতা রপ্তানিতে আয় হয়েছিল ৪৩ কোটি ১৬ লাখ ৫০ হাজার মার্কিন ডলার।

বিনিয়োগ বার্তা/পিএ