সৌদি খেজুর চাষে ১০ লাখ টাকা ঋণ পাবে কৃষক

সৌদি খেজুর চাষে ১০ লাখ টাকা ঋণ পাবে কৃষক
সৌদি খেজুর চাষ: ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদক, বিনিয়োগ বার্তা: 
সৌদি খেজুর চাষে (বাগান পরিচর্যার জন্য) একর প্রতি ১০ লাখ ৫ হাজার ৪০০ টাকার ঋণ পাবেন একজন কৃষক। একই সঙ্গে ভিয়েতনামের নারিকেল চাষেও কৃষকদের ঋণ দেওয়ার নতুন নির্দেশনা জারি করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। 

নতুন নির্দেশনায় চারটি ফসলে ঋণ দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) বাংলাদেশ ব্যাংকের কৃষি ঋণ বিভাগ থেকে জারি করা নির্দেশনায় বলা হয়েছে, ২০২১-২০২২ অর্থবছরের কৃষি-পল্লী ঋণ নীতিমালা ও কর্মসূচিতে শস্য, ফসল, ফল-ফুল ইত্যাদির সঙ্গে সৌদি খেজুর, ভিয়েতনামের নারিকেল, সুইট কর্ন ও কফি অন্তর্ভুক্ত করতে হবে।

নতুন নির্দেশনায় অনুযায়ী, সৌদি খেজুর, ভিয়েতনামের নারিকেল ও কফি চাষের জন্য সারা বছর ঋণ নিতে পারবেন কৃষক। তবে সুইট কর্নে ঋণ দেওয়া হবে ১৫ নভেম্বর-১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত। ঋণ পরিশোধের স্বাভাবিক সময়সীমা ফসল সংগ্রহের পর থেকেই শুরু হবে।

একজন কৃষক এক একর সৌদি খেজুর চাষে (বাগান পরিচর্যার জন্য) ঋণ পাবেন ১০ লাখ ৫ হাজার ৪০০ টাকা। ভিয়েতনামের নারিকেল চাষে ঋণ পাবেন ৪ লাখ ২৯ হাজার টাকা। এক একর জমিতে সুইট কর্ন চাষে ৬৬ হাজার টাকা এবং কফি চাষে সর্বোচ্চ ৩ লাখ ৮৪ হাজার টাকা ঋণ দেবে ব্যাংকগুলো। 

উল্লেখ্য, ২০২১-২০২২ অর্থবছরে ২৮ হাজার ৩৯০ কোটি টাকা কৃষি ঋণ বিতরণের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এর মধ্যে সরকারি খাতের ব্যাংক ১১ হাজার ৪৫ কোটি টাকা ও বেসরকারি ও বিদেশি ব্যাংক ১৭ হাজার ৩৪৬ কোটি টাকা বিতরণ করবে। গত অর্থবছরে ২৬ হাজার ২৯২ কোটি টাকার লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে বিতরণ করা হয় ২৫ হাজার ৫১১ কোটি টাকা।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ দেখা দেওয়ার পর গত এপ্রিলে কৃষি খাতের জন্য ৫ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এ তহবিল থেকে হর্টিকালচার, ফুল, ফল, মৎস্য, পোলট্রি, ডেইরি ও প্রাণিসম্পদ খাতে গত ঋণ বিতরণ করার কথা বলা হয়েছিল। এবার আলোচ্য চারটি ফসলকে এ ঋণের আওতায় আনা হয়েছে। 

ঢাকা/মাসুদ রানা