এইমাএ পাওয়া

শীতে পোশাকের যত্ন

ডিসেম্বর ২২, ২০১৬

‍আয়েশা বিথী, বিনিয়োগবার্তা:
শীতে নিজেকে হিমেল হাওয়া থেকে রক্ষা করতে পোশাক পড়ে না এমন মানুষে নেই বললেই চলে। আর এই শীতের যে জিনিসটি আপনার সব চেয়ে বেশি প্রয়োজন তা হচ্ছে শীতের পোশাক। মনের মতো ফ্যাশনে নিজেকে রাঙিয়ে তোলার মতো এর সুন্দর সময় আপনি আর পাবেন না। তবে পোশাকের সৌন্দর্যের দিকেও আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে। তাইএই শীতে নিজেকে যেমন সুরক্ষিত রাখছেন তেমনি সুরক্ষিত রাখুন আপনার শীতের পোশাকও। চলুন জেনে নেই শীতে পোশাকের যত্নে করণীয়।

শীতের বেশির ভাগ কাপড়ই উলের হয়ে থাকে। তাই পোশাক পরিষ্কার করার ক্ষেত্রে পোশাক পরিষ্কার করার ব্রাশ ব্যবহার করুন। ওয়াশিং মেশিংয়ে শীতের কাপড় না ধোঁয়াই ভালো। শীতের কাপড় সব সময় ঠান্ডা পানি আর ডিটারজেন্ট দিয়ে পরিষ্কার করুন। তাও হাতে ঘষে ঘষে। আমাদের অনেকের কাছে মনে হয় ড্রাই ওয়াশ করলে উলের কাপড় ভালো থাকে। এটি করবেন না। এটি কাপড়ের ভেতর ঢুকে এর নতুনত্ব নষ্ট করে দেয়। শীতের কাপড় ঘরে শুকাবেন না। এতে এর ভেতরে পানি জমে থাকে। দুপুরের কড়া রোদে শুকিয়ে নেবেন।

আয়রন করার সময় উলের কাপড় কিংবা শীতের কাপড় উল্টো করে নিয়ে আয়রন করুন। জ্যাকেট কিংবা কোট কোথাও ভাজ করে কিংবা ফেলে রাখবেন না। এটি প্লাস্টিকের হ্যাঙারে ঝুলিয়ে রাখুন। সম্ভব হলে তা কোনো কাগজ কিংবা প্লাস্টিক দিয়ে আপাদমস্তক ঢেকে রাখুন। যাতে বাইরের ধুলো না পরে।

লেদারের ব্যাপারে একটু খেয়াল রাখুন। লেদার খুব পাতলা হয় এতে টিস্যু রাখতে ভুলবেন না। আলমারিতে রাখার সময় শীতের কাপড় ভাঁজ করবেন না। তা ঝুলিয়ে রাখুন এবং তুলনামূলক ঠান্ডা জায়গায় রাখুন।

তবে শীতের কাপড়ের মধ্যে কিছু কাপড় আছে ধুলেই ভালো হয়। তার মধ্যে একটি ভেলভেটের কাপড়। ভেলভেটের কাপড় কখনোই আয়রন করা উচিৎ নয়। শালের ক্ষেত্রে সবার আগে মাথায় আসে কাশ্মীরি শালের কথা। কাশ্মিরী শাল কিংবা যেকোনো শাল হাতে বাসায় ধোয়াই ভালো। ধোয়ার ক্ষেত্রে ব্যবহার করতে পারেন বেবি লোশন। শাল কিংবা সোয়েটার আলমারিতে তুলে রাখার সময় অবশ্যই টিস্যু পেপারে মুড়ে রাখুন।
বিনিয়োগবার্তা/এবি