এইমাএ পাওয়া

বেনাপোল বন্দরে নিরাপত্তা প্রশিক্ষন অনুষ্ঠিত

এপ্রিল ২৪, ২০১৭

বেনাপোল প্রতিনিধি,বিনিয়োগ বার্তা:

দেশের সর্ববৃহত্তম স্থলবন্দর বেনাপোলে আমদানি পণ্য পাচার প্রতিরোধ ও বন্দরের নিরাপত্তা সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন নিয়মিত এধরনের প্রশিক্ষনে একদিকে যেমন বন্দরের শৃঙ্খলা ফিরবে অন্যদিকে বাড়বে নিরাপত্তা।

স্থলবন্দরে গিয়ে দেখা যায়, আমদানি পণ্যের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে বন্দরে অগ্নি নির্বাপন,চুরি প্রতিরোধ,অবৈধ অনুপ্রবেশ বন্ধ ও নিরাপত্তা কর্মীদের আত্মরক্ষার বিষয়ে ও নতুন নতুন কৌশল শেখানো হচ্ছে।

জানা যায়, বেনাপোল বন্দর থেকে ভারতের কলকাতা শহরের দুরত্ব ৮৩ কিলোমিটার। মাত্র ৩ ঘন্টায় একটি পণ্যবাহী ট্রাক আমদানি পণ্য নিয়ে পৌছাতে পারে কলকাতা শহরে। যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ হওয়াতে এপথে ব্যবসায়ীদের আমদানি-রফতানি বাণিজ্যে ব্যাপক আগ্রহ রয়েছে। প্রতিবছর এপথে ভারত থেকে ২০ হাজার কোটি টাকার পন্য আমদানি হয়ে থাকে। যা থেকে সরকার প্রায় ৫ হাজার কোটি টাকা রাজস্ব পেয়ে থাকে। কিন্তু এ বন্দরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে প্রথম থেকেই রয়েছে ব্যবসায়ীদের নানান ক্ষোভ। পণ্য চুরি,অগ্নিকান্ড ও এমন কি নিরাপত্তার কর্মীদের কুপিয়ে হত্যার মত ঘটনা ঘটছিল।

বেনাপোল স্থলবন্দরের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক (ট্রাফিক) আমিনুল ইসলাম জানান, বেনাপোল বন্দরে সবসময় ব্যবসায়ীদের হাজার হাজার কোটি টাকার মালামাল মজুদ থাকে। বন্দরের নিরাপত্তা কর্মীরা সজাগ থাকা সত্তেও বিভিন্ন সময় দূর্ঘটনা ঘটছে। আগামী দিনে যাতে সব ধরনের দূর্ঘটনা এড়িয়ে ব্যবসায়ীদের মালামাল সুরক্ষতি থাকে সে বিষয়ে বন্দরের প্রকৌশলীদের সাথে নিয়ে নিরাপত্তায় নিয়োজিত কর্মীদের প্রশিক্ষন দেওয়া হয়েছে। এখন থেকে নিয়মিত এ প্রশিক্ষন অব্যহত থাকবে।

বেনাপোল বন্দরে আমদানি পণ্যের শেড ইনচার্জ মনির হোসেন মজুমদার বলেন, এরআগে যারা এখানে বন্দর পরিচালকের দায়িত্ব নিয়েছেন তাদেরকে কখনো এভাবে দিকনির্দেশনা দিতে দেখা যায়নি। আমরা আশা করছি এই পদক্ষেপ সুষ্ঠভাবে বাণিজ্য পরিচালনার সার্থে গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকা রাখবে।

নিরাপত্তা প্রশিক্ষন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, বেনাপোল স্থলবন্দরের উপসহকারী প্রকৌশলী (বিদ্যুৎ) খোরশেদ আলম,আনসার ব্যাটালিয়নের (পিসি) রফিকুল ইসলাম,নিরাপত্তা সংস্থ্যা (পি,মা )এর কর্মকর্তা মিজানুর রহমান ও ফায়ার সার্ভিসের পরিদর্শক অহেন্দ্র কুমার দেবনাথ।

বিনিয়োগ বার্তা/এমআর