এইমাএ পাওয়া

বাজেটের প্রভাব শেয়ারবাজারে!

জুন ৫, ২০১৬

Dhaka-Stock-Exchange

নিজস্ব প্রতিবেদক, বিনিয়োগবার্তা : সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রোববার দেশের শেয়ারবাজারে দরপতনের মধ্য দিয়ে লেনদেন শেষ হয়েছে। এদিন উভয় বাজারে সূচক, লেনদেন ও বেশির ভাগ কোম্পানির শেয়ারের দাম কমেছে। প্রস্তাবিত ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেটে কোনো ধরনের প্রনোদনা না রাখায় হতাশ হয়েছে বিনিয়োগকারীরা। এ কারনে বাজারে লেনদেনে নেতিবাচক পড়েছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ২০১০ সালের ধ্বস পরবর্তী সময়ে ক্ষতিগ্রস্থ বিনিয়োগকারীদের জন্য বিভিন্ন প্রনোদনা ঘোষণা করে সরকার। প্রনোদনাসহ নানা নীতিসহায়তায় স্টক এক্সচেঞ্জগুলোর বেশ অবকাঠামোগত উন্নয়ন হয়েছে। কিন্তু বাজারে দীর্ঘ মেয়াদী স্থিতিশীলতা ফিরে আসেনি। বিভিন্ন ইস্যুতে নানা সময় অস্থিরতা শরু হয়। যা দীর্ঘ দিন অব্যাহত থাকে। এতে বাজারে দেখা দেয় এক ধরনের স্থবিরতা। ধারাবাহিক দরপতনে বাজারের প্রতি বিনিয়োগকারীরা আস্থা কমতে থাকে। তবুও বিনিয়োগকারীরা তাকিয়ে ছিল প্রস্তাবিত বাজেটের দিকে। কিন্তু বাজেটে বাজারের জন্য নীতি সহায়তা না থাকায় হতাশ হয়েছে বিনিয়োগকারীরা। আর এর ফলে বাজারে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে বলে মনে করছেন তারা। বাজার পর্যালোচনায় দেখা গেছে, রোববার দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক ডিএসইএক্সআগের দিনের চেয়ে ২০ দশমিক ১৯ পয়েন্ট কমে ৪ হাজার ৪২৫ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।এছাড়া ডিএসইএস সূচক আগের দিনের চেয়ে ৮দশমিক ৪৪ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৮৮ পয়েন্টেএবং ডিএসই-৩০ সূচক ১৩দশমিক ৮৫ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৭৪৭ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। এদিন ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৩০৭ কোটি টাকা। যা আগের দিনের চেয়ে ১৮৬ কোটি টাকা কম।বৃহস্পতিবার লেনদেন হয়েছিলো ৪৯৩কোটি ৫২ লাখ টাকা। লেনদেন হওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে দাম বেড়েছে ৭১টির, কমেছে ১৯০টির এবংঅপরিবর্তিত আছে ৫৩টি। দেশের অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) প্রধান সূচক সিএসইএক্সআগের দিনের চেয়ে ৪৫ দশমিক ১৮ পয়েন্ট কমে ৮ হাজার ২৮৪পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। এদিন সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২১ কোটি ৫৫লাখ টাকা। সিএসইতে লেনদেন হওয়া ২২৪টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দাম বেড়েছে ৫৫টির,কমেছে ১৪০টির এবং অপরিবর্তিত আছে২৯টির। বিনিয়োগবার্তা/ রাজিব