এইমাএ পাওয়া

বাংলাদেশীদের বিদেশ যাওয়ার ব্যয় বেশি

জুলাই ১৬, ২০১৬

নিজস্ব প্রতিবেদক, বিনিয়োগবার্তা:
বাংলাদেশ থেকে বিদেশে যেতে ব্যয় পৃথিবীর অন্যান্য দেশের চেয়ে অনেক বেশি হচ্ছে। এ কারণে প্রবাসী শ্রমিকদের নিট আয় কমে যায়।এমন তথ্য জানিয়েছেন বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) নির্বাহী পরিচালক ড. মুস্তাফিজুর রহমান।

শনিবার রাজধানীর স্পেক্ট্রা কনভেনশন সেন্টারে ডিবেটে ফর ডেমোক্রেসি আয়োজিত ‘বাজটে ও শ্রম-অভবিাসন’ র্শীষক এক গোলটেবিল আলোচনায় তিনি এ কথা বলেন।

ড. মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘বিশ্বের যেকোনো দেশের তুলনায় বাংলাদেশে অভিবাসন ব্যয় সবচেয়ে বেশি। এছাড়া যখন কোন ব্যক্তি ৫ লাখ খরচ করে বিদেশ যান তখন কিন্তু তিনি এই টাকা ব্যাংক থেকে ঋণ করেন না। আশপাশে থেকে ধার-কর্জ করেন। পরবর্তীতে এই টাকা পরিশোধ করতে গিয়ে তাকে ১০ লাখ টাকা দিতে হচ্ছে।’

‘আমাদের এক গবেষণায় দেখা গেছে, বিদেশ যেতে কোন ব্যক্তি যদি ১ লাখ ধার নেন। পরবর্তী তা পরিশোধ করতে তাকে অতিরিক্ত আরো ১ লাখ টাকা দিতে হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘প্রবাসীরা কতটা আয় করলো আমরা তার হিসাব করি। কিন্তু তিনি বিদেশ যেতে কত টাকা খরচ করেছেন তার হিসাব করি না। একজন ব্যক্তি যদি ৫ লাখ টাকা ব্যয় করে বিদেশে যান। আর তিনি যদি মোট ২৫ লাখ টাকায় আয় করেন। তাহলে নিট আয় এসে দাড়াবে ২০ লাখ টাকা।’

সরকারে উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘অর্থনীতিতে অভিবাসন খাতের গুরুত্ব অস্বীকার করার কিছু নেই। তারা যে টাকা পাঠাচ্ছে তা দিয়ে আমরা আমদানি ব্যয় বহন করছি এবং দেশের বিভিন্ন উন্নয়ন কাজ করছি। তাই প্রবাসীদের কল্যাণে আরো বিভিন্ন প্রকল্প হাতে নিতে হবে। এসব প্রকল্পে ক্রমানয়ে বরাদ্দ বাড়ছে কিনা তাও খতিয়ে দেখতে হবে।’

আলোচনায় জনশক্তি কর্মমসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর (বিএমইটি) পরিচালক ড. মো. নুরুল ইসলাম বলেন, ‘৫০টি দেশে কোন কোন খাতে শ্রম বাজারের চাহিদা আছে তা যাচাই করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। তাদের নতুন নতুন চাহিদাকে কেন্দ্র করে কর্মীদের প্রশিক্ষণ দিয়ে এসব দেশে জনশক্তি প্রেরণ করা হবে।’

গোলটেবিল আলোচনায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ডিবেটে ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান হাসান আহমদে চৌধুরী কিরণ।
বিনিয়োগবার্তা/রাজিব