ব্রিটিশ বিনিয়োগকারীরা বাংলাদেশে বিনিয়োগ করুন: প্রধানমন্ত্রী 

ব্রিটিশ বিনিয়োগকারীরা বাংলাদেশে বিনিয়োগ করুন: প্রধানমন্ত্রী 

নিজস্ব ডেস্ক, বিনিয়োগ বার্তা: 
ব্রিটিশ বিনিয়োগকারীদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘‘বাংলাদেশে ইতোমধ্যে অনেক বড় বড় ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশে বিনিয়োগ করে সফলভাবে ব্যবসা পরিচালনা করছে। সেজন্য আমি যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন ব্যবসায়িক কোম্পানিকে বাংলাদেশে বিনিয়োগের জন্য আহ্বান জানাচ্ছি।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে ব্যবসায়িক পরিবেশ গড়ে তুলতে সরকার, সরকারি বিভিন্ন সংস্থাসহ বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) ও বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা) সর্বোচ্চ কাজ করে যাচ্ছে। এখানে বিনিয়োগ করে আপনারা যেন সর্বোচ্চ রিটার্ন পেতে পারেন, সে জন্য তারা সার্বিক সুযোগ সুবিধার ব্যবস্থা রেখেছে। 

বৃহস্পতিবার (৪ নভেম্বর) যুক্তরাজ্যের লন্ডনে স্থানীয় সময় সকাল ১০টা ও বাংলাদেশ সময় বিকাল ৪টায় অনুষ্ঠিত রোড শো’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রবাসী ও বিদেশি বিনিয়োগকারীদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ আহ্বান জানান।

রোড শোতে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন, প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান ফজলুর রহমান, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, বিএসইসি’র চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম, বিডা’র চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, বাংলাদেশ রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকা কর্তৃপক্ষের (বেপজা) নির্বাহী চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মো. নজরুল ইসলাম এবং যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের হাইকমিশনার বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি সাইদা মুনা তাসনিম উপস্থিত রয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা যারা যুক্তরাজ্যে আছেন, তাদের প্রতি অনুরোধ- আপনারা বিদেশে আছেন, এখন নিজের দেশে আসুন এবং ইনভেস্ট করুন। এখানে যারা ব্যবসা করছেন তাদের জন্য সুবিধা রয়েছে। আপনারা বাংলাদেশে নিজেদের ইন্ডাস্ট্রিজ করতে পারেন। বিশেষ করে এগ্রো প্রোডাক্টস বা খাদ্য প্রক্রিয়াজাত শিল্প গড়ে তুললে আরো বেশি তাজা শাক, সবজি, মাছ, ফলমূল নিয়ে আসতে পারবেন।’


তিনি বলেন, ‘‘আমাদের কৃষিতে বিপ্লব ঘটেছে। সরা বছরই আমরা সব ধরনের সবজি ও সব কিছু উৎপাদন করতে পারি। গবেষণার মাধ্যমে সেটা আমরা অর্জন করেছি। কাজেই যারা এখানে ব্যবসায়ী আছেন, বিশেষ করে আমাদের বাংলাদেশের যারা আছেন, তাদেরকে আমি বিশেষভাবে আহ্বান করছি। 

‘আপনারা বাংলাদেশে আসুন। সঙ্গে বিট্রিশ ইনভেন্টরদের পার্টনার করে নিয়ে আসুন। তাদের সঙ্গে আপনারা বাংলাদেশে এসে ব্যবসা করুন। সব ধরনের সুযোগ সুবিধা আপনারা পাবেন। কারো কোনো অসুবিধা থাকলে, অবশ্যই সেটা আমরা দেখব। সহজভাবে যেন ব্যবসা করতে পারেন, সে ব্যবস্থা আমরা করে দিব। 

‘বাংলাদেশি যারা গ্রেট ব্রিটেনে বিভিন্ন জায়গায় বসবাস করছেন, তারা যদি বাংলাদেশে আসেন এবং ব্যবসা করেন তাহলে আমি অনেক খুশি হবো।”

শেখ হাসিনা বলেন, ‘‘বাংলাদেশ বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম আরএমজি রপ্তানিকারক। বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম সবজি উৎপাদনকারী। বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম অভ্যন্তরীণ মৎস্য উৎপাদনকারী। বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম ইন্টারনেট ফ্রিল্যান্সিং উৎপাদনকারী এবং বিশ্বের চতুর্থ বৃহত্তম চাল উৎপাদনকারী দেশ।

‘আমি আশ্বস্ত করতে চাই— বাংলাদেশ সরকার, সরকারি বিভিন্ন সংস্থাসহ বিএসইসি ও বিডা আপনাদের ব্যবসায়িক পরিবেশ গড়ে তুলতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছে। আপনারা এখানে বিনিয়োগ করে যেন সর্বোচ্চ রিটার্ন পেতে পারেন সেজন্য তারা সার্বিক সুযোগ সুবিধার ব্যবস্থা করেছে। ইতোমধ্যে অনেক বড় বড় ব্যবসায়ীক সংস্থা এখানে সফলভাবে ব্যবসা পরিচালনা করছে। সেজন্য আমি আরও কোম্পানিকে বাংলাদেশের শেয়ারবাজারে বিনিয়োগের জন্য আহ্বান জানাচ্ছি। এ রোড শোতে উপস্থিত যুক্তরাজ্যের সকল বিনিয়োগকারী ও ব্যবসায়ী নেতাদের আমি ধন্যবাদ জানাচ্ছি।” 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরও বলেন, ‘রোড শোতে উপস্থিত সবাইকে বাংলাদেশে আসার জন্য স্বাগত জানাচ্ছি। একই সঙ্গে আমাদের উন্নয়ন যাত্রার অংশ নিতে আহ্বান জানাচ্ছি। আমি রোড শোর শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করছি। এ অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য বিএসইসি, বিডা, বাংলাদেশ হাইকমিশন লন্ডন, ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক (ইউসিবিএল), ব্রিটিশ-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজসহ সেসব প্রতিষ্ঠান এ রোড আয়োজনে সহায়তা করেছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।’

যুক্তরাজ্যে অনুষ্ঠিত রোড শোতে লন্ডনের বিভিন্ন প্রাতিষ্ঠানিক ও ব্যক্তি বিনিয়োগকারী এবং স্টেক হোল্ডাররা অংশ গ্রহণ করেছেন। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ থেকে আগত অতিথিরা বিভিন্ন সেক্টর নিয়ে প্রাতিষ্ঠানিক ও ব্যক্তি বিনিয়োগকারীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রেখেছেন। 

সেখানে বাংলাদেশে বিনিয়োগের সুযোগ-সুবিধা, বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড, সরকারের গৃহীত বিনিয়োগবান্ধব নীতি, শেয়ারবাজার ও সার্বিক অর্থনীতির পরিস্থিতি এবং এফডিআই’র বিষয়ে বাংলাদেশ সরকারের সহযোগিতা আমন্ত্রিত অতিথিদের সামনে তুলে ধরা হয়েছে।

ঢাকা/মাসুদ