এইমাএ পাওয়া

পোশাক খাতের জন্য সুস্পষ্ট প্রস্তাব নেই: বিজিএমইএ

জুন ২, ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক, বিনিয়োগবার্তা:

আগামী ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে তৈরি পোশাক খাতের জন্য সুস্পষ্ট কোনো প্রস্তাব নেই বলে জানিয়েছে তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রপ্তানিকারকদের সংগঠন বিজিএমইএ। বিজিএমইএ আশা করেছিল বাজেটে পোশাক শিল্পে বিনিয়োগ সুসংহত করতে এবং এ শিল্পের বিকাশে কিছু ব্যতিক্রমধর্মী পদক্ষেপ নেয়া হবে। কিন্তু তা হয়নি, বৃহস্পতিবার বাজেট পরবর্তী এক প্রতিক্রিয়ায় সংগঠনটি এসব কথা জানায়।
বাজেট প্রতিক্রিয়ায় বিজিএমইএ জানায়, ‘বাজেটে পোশাক শিল্পে নগদ সহায়তার বিষয়ে সুস্পষ্ট কোনো প্রস্তাব রাখা হয়নি, যদিও পোশাক খাতের পক্ষ থেকে দাবি ছিল, আগামী দুই বছরের জন্য উৎসে কর সম্পূণরূপে প্রত্যাহার করা; করপোরেট করের হার হ্রাস করে ১০ শতাংশ করা ও তা আগামী পাঁচ বছরের জন্য কার্যকর রাখা।এছাড়া আগামী দুই বছরের জন্য পোশাক রপ্তানির এফওবি মূল্যের ওপর প্রচলিত সুবিধাগুলোর অতিরিক্ত পাঁচ শতাংশ হারে নগদ সহায়তা প্রদান করা।’
সংগঠনটি জানায়, বর্তমানে পোশাক শিল্প একটি ক্রান্তিলগ্ন অতিক্রম করছে। পণ্যের অব্যাহত দরপতন, বছরে গড়ে ৮ শতাংশ হারে উৎপাদন খরচ বৃদ্ধি, রিমেডিয়েশন বাবদ ব্যয় বৃদ্ধি ও সর্বোপরি প্রতিযোগী দেশগুলোর সঙ্গে তাল মিলিয়ে বাজার ধরে রাখার সংগ্রামের ফলে পোশাক শিল্পের সক্ষমতা আশংকাজনক হারে হ্রাস পেয়েছে। এ পরিস্থিতিতে বিজিএমইএ আশা করেছিল, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে বাজেটে পোশাক শিল্পে বিনিয়োগ সুসংহত করা ও এ শিল্পের বিকাশে কিছু ব্যতিক্রমধর্মী পদক্ষেপ পোশাক শিল্পের জন্য প্রণোদনা আকারে সহায়তা দেয়া হবে।কিন্তু তার কিছুই হয়নি।
বিজিএমইএ মনে করে, প্রস্তাবিত করর্পোরেট কর হার আরও হ্রাস করা দরকার। এটিকে হ্রাস করে আগের মতো ১০ শতাংশ করা ও তা আগামী পাঁচ বছরের জন্য কার্যকর রাখার জন্য সরকারকে অনুরোধ জানিয়েছে সংগঠনটি। বাজেটের বিষয়ে আলাপ আলোচনার সুযোগ এখনো রয়েছে। কোথাও কোনো মতামত থাকলে তা কর্তৃপক্ষ কর্তৃক মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও মাননীয় অর্থমন্ত্রীর সাথে আলোচনা করে সমাধান করার সুযোগ রয়েছে।
প্রস্তাবিত বাজেটে জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার নির্ধারণ করা হয়েছে ৭ দশমিক ৪ শতাংশ, মূল্যস্ফীতি ধরা হয়েছে ৫ দশমিক ৫ শতাংশ। পূর্ববতী বছরে প্রবৃদ্ধি ৭.১শতাংশ এর ওপর ছিল। আর চলতি অর্থবছরে এই প্রবৃদ্ধি ৭.২৪ শতাংশ হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এ উচ্চ প্রবৃদ্ধি অর্জন ও মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে থাকার জন্য বিজিএমইএ অর্থমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়েছে।