এইমাএ পাওয়া

‘জনগনের অধিকার নিশ্চিত করতেই ফুটপাত খালি করছি’

এপ্রিল ২০, ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক

ফুটপাত দিয়ে হাঁটা জনগণের সাংবিধানিক অধিকার। তাদের সে অধিকার নিশ্চিত করতেই ফুটপাত উন্মুক্ত করছি।

আজ (বৃহস্পতিবার) রাজধানীর গুলশানের কূটনৈতিক এলাকায় ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের উচ্ছেদ অভিযান চলাকালে মেয়র আনিসুল হক এসব কথা বলেন। এসময় ফুটপাত থেকে অস্থায়ী দোকান সরানোর পাশাপাশি রাশিয়ান দূতাবাসের পাশের ফুটপাত ঘিরে রাখা বেড়া এবং রাস্তাজুড়ে রাখা ফুলের গাছও সরানো হয়।

 

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আনিসুল হক বলেন, আমরা এটাকে উচ্ছেদ বলব না। সড়ক এবং ফুটপাত আমরা উন্মুক্ত করছি।

তিনি বলেন, দূতাবাসের পাশের ফুটপাত ঘিরে রাখা বেড়া এবং রাস্তাজুড়ে রাখা ফুলের গাছ সরানোর আগে সংশ্লিষ্ট দূতাবাসগুলোর সঙ্গে আমরা আলোচনা করেছি। আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে আমরা তাদের বুঝাতে সক্ষম হয়েছি যে, এটা জনগণের রাস্তা। জনগণের ফুটপাত। এখান দিয়ে হাঁটা তাদের সাংবিধানিক অধিকার।

মেয়র বলেন, এটা আমাদের অব্যাহত প্রক্রিয়া। দূতাবাসের যে তল্লাশিচৌকিগুলো রাস্তা দখল করে আছে- সেগুলোও সরিয়ে নিতে অনুরোধ জানানো হয়েছে। দূতাবাসগুলোর নিরাপত্তার বিষয়েও তাদের আশ্বস্ত করা হয়েছে। জনগণের অধিকার নিশ্চিত করতে সব দিকেই নজর দিতে হচ্ছে।

তিনি জানান, সৌদি আরবের দূতাবাসের পাশেও উচ্ছেদ অভিযান চলবে। সৌদি দূতাবাসের সীমানাপ্রাচীরের পাশেও একইভাবে রাস্তা দখল করে বিভিন্ন স্থাপনা রয়েছে।

আনিসুল হক বলেন, পাশের রাস্তা ও ফুটপাত আটকে বেশ কিছু স্থাপনা রেখেছে আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল স্কুল। সেগুলো সরিয়ে নিতে সংশ্লিষ্ট স্কুল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করা হয়েছে। ছুটির পরই স্থাপনাগুলো সরিয়ে নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে তারা।

বিনিয়োগ বার্তা/সোহেলী