এইমাএ পাওয়া

ইউলুপে নিরাপত্তা ঝুঁকিতে বিটিভি

এপ্রিল ৫, ২০১৭

বিনিয়োগ বার্তা ডেস্ক:

রাজধানীর রামপুরা ব্রিজসংলগ্ন বাংলাদেশ টেলিভিশনের সামনে নির্মিত ইউলুপ যান চলাচলের জন্য খুলে দেয়ায় পর জনভোগান্তি কমেছে। ২০১৪ সালের প্রথম দিকে বিটিভি ভবনের সামনে দক্ষিণ ইউলুপের নির্মাণ কাজ শুরু হয়। নানা চড়াই উৎরাই পেরিয়ে গত বছরের ২৫ জুন এর উদ্বোধন করা হয়। ৪৫০ মিটার দৈর্ঘ্যবিশিষ্ট এবং ৭ দশমিক ৭ মিটার থেকে ১০ দশমিক ৭ মিটার প্রস্থ বিশিষ্ট একমুখী এ লুপটি দিয়ে সব ধরনের যান্ত্রিক যানবাহন বনশ্রী থেকে হাতিরঝিল অথবা বাড্ডা ও বিশ্বরোডের দিকে যেতে পারছে।

তবে এই ইউলুপের ফলে নিরাপত্তা ঝুঁকিতে রয়েছে একমাত্র রাষ্ট্রীয় অডিও ভিজ্যুয়াল গণমাধ্যম বাংলাদেশ টেলিভিশন। এমনি তথ্য পাওয়া গেছে সরকারের একটি গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদনে। যেখানে, রাষ্ট্রীয় এ গণমাধ্যমের নিরাপত্তাহীনতার বিষয়ে উদ্বেগ জানিয়ে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ জানিয়েছে সংস্থাটি। এরইমধ্যে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে চিঠি দিয়েছেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

বনশ্রী থেকে হাতিরঝিলে যেতে তৈরি এই ইউলুপটি কমিয়েছে যানজটের ভোগান্তি। এর উপর দাঁড়ালে হাতছোঁয়া দূরত্বে বিটিভি ভবন। এই ছবিই বলে দেয়, এখান থেকে নাশকতার চেষ্টা করা খুব একটা কঠিন নয়। এজন্য একটি গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদনে ইউলুপটিকে দেখা হচ্ছে দেশের একমাত্র রাষ্ট্রীয় অডিও ভিজুয়াল গণমাধ্যমের নিরাপত্তা ঝুঁকির অন্যতম কারণ হিসেবে।

গুলশানে হলি আর্টিজানে হামলার পর আটক হওয়া জঙ্গিরা জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছিল; বিটিভির মতো স্পর্শকাতর স্থাপনায় আক্রমনের জন্য তারা প্রস্তুতি নিয়েছিল। যার ওপর ভিত্তি করে সরেজমিনে পরিদর্শনে নামে গোয়েন্দা সংস্থাটি। এসময় বিটিভির নিরাপত্তা ঝুকি ছাড়াও বেশ কিছু ক্রুটি ও অব্যবস্থাপনা নজরে আসে তাদের।

হাতিরঝিল প্রকল্পের চুক্তিতে, শব্দ দূষণ রোধে ইউলুপে আধুনিক বেড়া বসানো ও ইউলুপ রক্ষাকারী দেয়াল নির্মাণের কথা ছিলো। এছাড়া এক নম্বর ফটকের কাছে গ্যারেজে বিটিভির সম্প্রচার যন্ত্রাপাতি রাখা হয়েছে যা প্রায়ই খোলা থাকে। গোয়েন্দাদের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে এতে প্রমাণ হয় বিটিভির সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা নাজুক। যাতে আরো বলা হয়েছে, ২০১৩ সালের ৭ মার্চ এই এলাকায় বাহির থেকে ছোড়া দুইটি ককটেল বিস্ফোরিত হয়। এছাড়া সিসি ক্যামেরা ও লাগেজ স্ক্যানার মনিটরিংয়ের দুর্বলতাও উঠে এসেছে প্রতিবেদনে।

এসব বিবেচনায় বিটিভির নিরাপত্তায় দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ জানায় গোয়েন্দা সংস্থাটি। যার ভিত্তিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে চিঠি দিলেও এখনো এর দৃশ্যমান কোন পদক্ষেপ নিতে দেখা যায়নি। তবে বিটিভিকে নিরাপদ ভাবছেন এর মহাপরিচালক।

হাতিরঝিল প্রকল্পের এই ইউলুপটি খুলে দেয়া হয়েছে, ৮ মাসেরও বেশি সময় আগে। তবে চুক্তি অনুযায়ী ইউলুপের চারপাশে এখনো কোনো নিরাপত্তা বলয় তৈরি না হওয়ায় বিটিভির নিরাপত্তা ঝুঁকি রয়েই গেছে। তথ্যসূত্র : চ্যানেল২৪